তোমার সর্বনাশ (কবিতা)

মনে পড়ে না আজ….

আমাকে তুমি ডেকেছিলে কবে প্রিয় নাম ধরে!
কবে ছুঁয়েছিলে নিঃসঙ্গতা, কোন প্রহরে
যূথবদ্ধ জোনাক জ্বেলে ছুঁয়েছিলে আঁধার, কোন কারণে….
বৃষ্টির জল আঁকা গাছের পাতায়, কবে রেখেছিলে সকালের দ্যুতি,কোন বাঁধনে,
বাতাস হয়ে উড়িয়েছিলে ব্যথার ধুলি, গগন পরে…
কিছুই আজ আর পড়ে না মনে!

বিয়োগান্ত নাটকের শেষ দৃশ্যে, খল নায়কের হেরে যাওয়া নাকি জিতে যাওয়া…
এসব সব আমার আকাশকুসুম কল্পনা!
রাখো ওসব কথা…
রাখো বাতুলতা…
প্রাগলভতায় বলে তো গেছো কত কথা!
বাঙময় জীবনের মুখে আজ টোনা
জাবর কাটা জীবনের কথা।

সুখ বেসাতি ছেয়ে গেছে শ্যাওলা সবুজ রঙে
হড়কে সময়, পিছলে পড়ে তোমার কপালে…
কপাল ধোয়া জলে আবার কিসের দাগ?
সিঁদুর ছিল বুঝি!
নইলে জলের কেন এমন আঁক?

সহস্র বেদনার চোখে আজ ঠুলি
আহা অভিনয়ে বেশ বাহাদুরি!
আচ্ছা এ কেমন তবে শোক..
ঠিকানা পাঠালাম মেঘের খামে
এখানেই আমার আনন্দলোক!
শতাব্দীকাল জড়িয়ে শতদল, জলজ দুখ ভাসান,
আমার আছে ভর ভরান্তি সকাল দুপুর সাঁঝ,
ক্লান্তিমাখা উদাসী একা নিঃশোক রাত…
খুঁজছো কেন যাপিত কাহন, ধূসর বেদনা,
ছড়িয়ে দু’হাত?
আঙুল ছুঁয়ে ভাবছো আবার, ভালবাসার নিগূঢ় কারণ…. তোমার সর্বনাশ!

-ফারহানা নীলা

Leave a Reply

Your email address will not be published.